বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়কে তীব্র যানজট

 

ঢাকা-টাঙ্গাইল-বঙ্গবন্ধুসেতু মহাসড়কের মির্জাপুর থেকে বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্বপ্রান্ত পর্যন্ত আজ শনিবার ভোর থেকে তীব্র যানজট দেখা যাচ্ছে। কোথাও কোথাও যানবাহনগুলো ঘণ্টার পর ঘণ্টা দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা গেছে।

আবার কোথাও একেবারে ধীরগতিতে যান চলাচল করছে। এতে দুর্ভোগে পড়েছেন যাত্রী ও চালকরা।মহাসড়কে দায়িত্বরত ট্রাফিক পুলিশের গাফিলতির অভিযোগ তুলেছেন ভুক্তভোগীরা।শনিবার সরেজমিনে এসব চিত্র দেখা গেছে।

উত্তরবঙ্গের প্রবেশদ্বার মহাসড়কের এলেঙ্গা বাসস্ট্যান্ড এলাকায় শতশত যাত্রীবাহী বাস ও মালামাল ভর্তি ট্রাক সারিবদ্ধভাবে দাঁড়িয়ে আছে। ঘণ্টার পর ঘণ্টা যানজটে আটকে পড়ে হাজার হাজার যাত্রী চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন। এই সুযোগ সিএনজি চালিত অটো যানগুলোতে অতিরিক্ত ভাড়া নিচ্ছে চালকরা।

দুপুর সাড়ে ১২ টার দিকে মহাসড়কের ময়মনসিংহ লিংক রোডে দেখা যায়, তীব্র যানজট ও খুবই ধীরগতি। এই পরিস্থিতিতে এসময় এখানে দায়িত্বরত ট্রাফিক পুলিশের সার্জেন্ট জামিলুর রহমান ও ইন্সপেক্টর একরাম হোসেন পুলিশ বক্সের ভেতরে প্রায় এক ঘণ্টা যাবৎ আড্ডা দিচ্ছেন। পরে সার্জেন্ট জামিলুর রহমান বের হয়ে যানজট নিরসন না করে গাড়ি চেকআপ করছেন। স্থানীয় কয়েক ব্যক্তি জানান, তারা নিয়মিতভাবেই এরকম করে থাকেন।

শুক্রবার সাপ্তাহিক ছুটি এবং আজ শনিবার বিজয় দিবস উপলক্ষে সরকারি ছুটি থাকায় মহাসড়কে যানবাহনের সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে।

অন্যদিকে, টাঙ্গাইল মহাসড়কে চার লেনের কাজ চলমান এবং বিভিন্নস্থানে বড় বড় গর্ত থাকায় যানজটের সৃষ্টি হয়। শুক্রবারও মহাসড়কের বিভিন্নস্থানে যান চলাচলে ধীরগতি এবং তীব্র যানজট ছিল।

এবিষয়ে টাঙ্গাইল ট্রাফিকের ইন্সপেক্টর একরাম হোসেন বলেন, রাস্তায় সকাল থেকে যানজট আছে।

যানজট নিরসনে গাফিলতির কথা অস্বীকার করে তিনি বলেন, যানজট নিরসনের পাশাপাশি আমাদের মামলাও দিতে হয়।

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *